প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

বেঙ্গল ডেস্কঃ
বিজয়া দশমীর প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হলো সনাতন ধর্মালম্বীদের ৫ দিন ব্যাপী সর্ববৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গোৎসব। মঙ্গলবার (০৮ অক্টোবর) নিশছিদ্র নিরাপত্তার মাধ্যেম সন্ধা থেকে শুরু হয়ে গভীর রাত পর্যন্ত চলতে থাকে ২০৫ টি পূজা মন্ডপের প্রতিমা বিসর্জন।হিন্দু বিশ্বাসে-টানা পাঁচদিন মৃন্ময়ীরূপে মণ্ডপে মণ্ডপে থেকে ফিরে গেছেন কৈলাসে স্বামী শিবের সান্নিধ্যে।

সকালে পূজা মন্ডপগুলোতে দর্পন বিসর্জনের মাধ্যমে দশমী বিহিত পূজা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে স্বামীর মঙ্গল কামনার্থে মায়ের চরনে সিঁদুর ছুয়িয়ে নেন নারীরা।ঢাক-ঊলুধ্বনি-শঙ্খনিনাদে হিন্দু রমণীদের পরম আকাঙ্ক্ষিত সিঁদুর খেলায় মুখর হয়ে ওঠে মন্দিরগুলো। একদিকে বিদায়ের সুর। অন্যদিকে উৎসবের আমেজ।

আসছে বছর আবার ধরনীতে আসবেন মা তাই এই আনন্দে বাদ্যের তালে তালে বিজয়ার উৎসবে উল্লাস করেন ভক্তরা। প্রশাসনের কঠোর নির্দেশনা মেনে সন্ধ্যার আগ থেকেই বিভিন্ন পূজা মন্ডপ থেকে প্রতিমা নিয়ে বিসর্জনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে যায় পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দরা। নিশছিদ্র নিরাপত্তায় বিজয়া শোভাযাত্রার মাধ্যমে প্রতিমা নিয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড দিয়ে প্রবেশ করে ৫নং ঘাটে যেয়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে প্রতিমা বিসর্জন করা হয়। এছাড়া ফতুল্লার প্রতিমাগুলো বুড়িগঙ্গা, সোনারগাঁও ও আড়াইহাজারের প্রতিমা মেঘনায় বিসর্জন দেওয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন এর উদ্যোগে এ প্রতিমা বিসর্জনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ জেলা শাখার সভাপতি দীপক কুমার সাহা’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শিখন সরকার শিপনের সঞ্চালনায় বিসর্জন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা, মহানগর পূজা পরিষদের সভাপতি অরুন কুমার দাস, সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার সাহা, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক উত্তম সাহা, বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু সংস্কার সমিতির সভাপতি কমলেশ সাহা, সাধু নাগ মহাশয় আশ্রমের সাধারণ সম্পাদক তারাপদ আচার্য্য, শারদঞ্জলী ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক লিটন পাল, মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ দাস, ১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শফিউদ্দিন প্রধান, ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন




Copyright © 2019 All rights reserved bengalreport24.com
Design BY NewsTheme