বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ৪১ পাউন্ডের কেক কাটলেন সাখাওয়াত

বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ৪১ পাউন্ডের কেক কাটলেন সাখাওয়াত

৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ৪১ পাউন্ডের কেক কাটেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান

বেঙ্গল রিপোর্ট২৪:
বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কয়েক হাজার নেতাকর্মী নিয়ে শহরে বিশাল শোডাউন করেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান। রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শহরের নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের সামনের রাস্তায় নেতাকর্মীদের নিয়ে ৪১ পাউন্ডের কেক কাটেন তিনি এরপর একটি বিশাল র‌্যালী নিয়ে শহর প্রদক্ষিণ করেন।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির ৪১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ছিলো ১ সেপ্টেম্বর রবিবার। এদিন বিকেলে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নেতাকর্মীরা এসে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের সামনে এসে জড়ো হয়। বিকেল পাঁচটায় কয়েক হাজার নেতাকর্মীকে সাথে নিয়ে ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ৪১ পাউন্ডের কেক কাটেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র সহ সভাপতি এড. সাখাওয়াত হোসেন খান।

কেক কাটা শেষ হলে নেতাকর্মীর বহর নিয়ে শহরের রাজপথে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালী বের করেন এড. সাখাওয়াত। রাজপথে মিছিলের সুযোগ না পেয়ে ক্ষুব্দ নেতাকর্মীরা এদিন প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর র‌্যালীতে রাজপথে নামতে পেরে বিএনপি চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির শ্লোগানে রাজপথ উত্তাল করে তোলে। র‌্যালীটি নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের সামনে থেকে শুরু হয়ে শহরের ২নং রেল গেইটে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

র‌্যালী পরবর্তী বক্তব্যে এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, নানা ভয় ভীতি উপেক্ষা করে যেসব নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানকে সফল করেছে, তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞা প্রকাশ করছি। আজকে আমাদের চেয়ারপার্সণ বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যা ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় কারাগারের অন্ধকারে দিন কাটাচ্ছেন। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে, খালেদা জিয়া দেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করতে গিয়ে আজ স্বৈরাচারী সরকারের নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। তাই খালেদা জিয়ার মুক্তি নাহলে দেশের মানুষের অধিকার ফিরে পাওয়া যাবে না। আগামী দিনে সকল নেতাকর্মীকে রাজপথে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। এ লক্ষ্যে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে। সকলকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভেচ্ছা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি এড. সরকার হুমায়ুন কবীর, মহানগর বিএনপি নেতা মনির হোসেন খান, গুলজার হোসেন খান, হাজী ইসমাইল, বন্দর থানা বিএনপি’র সাবেক সভাপতি আমানউদ্দিন আমান, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন সিকদার, জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি মো: মন্টু মেম্বার, জেলা মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান, সদস্য সচিব আমিনুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সহ সভাপতি শহিদুল ইসলাম রিপন, পারভেজ মল্লিক, যুগ্ম সম্পাদক শাহিন আহমেদ, তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক সজিব খন্দকার, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সাগর প্রধান, মহানগর মৎসজীবী দলের আহবায়ক জাহাঙ্গির আলম রতন, সদস্য সচিব সাগর প্রধান, যুগ্ম আহবায়ক লিংকন খান, ঋষীকেশ মন্ডল মিঠু, মহানগর শ্রমিক দলের যুগ্ম আহবায়ক লুৎফর রহমান মন্টু, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক রাকিব হোসেন রাজ, মহানগর তাতী দলের আহবায়ক মীর আলমগীর, সদস্য সচিব ইকবাল হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক এড. কায়সার আলম চৌধুরী টুটুল, অপু রহমান, জাতীয়তাবাদী আইন ছাত্র ফোরামের আহবায়ক এমকে সুমন, ছাত্রদল নেতা লিংরাজ খান, সুমন হাওলাদার, মো: ফয়সাল আল আমিন ভূইয়া, স¤্রাট হোসেন সুজনসহ কয়েক হাজার নেতাকর্মী।

সংবাদটি শেয়ার করুন




Copyright © 2019 All rights reserved bengalreport24.com
Design BY NewsTheme