বন্দরে নারী শ্রমিকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

বিদেশে নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জের ১৮ বছর বয়সী এক তরুনীকে বন্দরে ডেকে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ওই তরুনী একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক।

বুধবার নয়টার দিকে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা জানান, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান অব্যহত রেখেছে। মামলার বাদী ও পোশাক কারখানার নারী শ্রমিকের ডাক্তারী পরিক্ষার পর বিকেলে ২২ ধারায় আদালত জবানবন্দি দিয়েছেন।

মামলায় বলা হয়, ওই তরুনী রুপগঞ্জের বরপা শান্তিনগর এলাকায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে আসছে এবং বরপা এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করে। পারিবারিক ও অভাব অনাটনের কারনে র্গামেন্টস কর্মী তরুনী বিদেশ যাওয়ার জন্য ইচ্ছা পোষন করলে ওই সময় তাকে আরেক সহকর্মীর মাধ্যমে বন্দর থানার বারপাড়াস্থ শাঁসনেরবাগ এলাকার মৃত আম্বি মেম্বারের ছেলে আদম বেপারী হাজী রহিম বাদশার সাথে পরিচয় হয়।

ওই পরিচয় সূত্র ধরে আদম বেপারী হাজী রহিম বাদশা গত ১৩ মার্চ রোববার বিকেলে বিদেশ নেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে তার বাড়িতে আসতে বলে। গার্মেন্টস কর্মী তরুনী আদম বেপারী কথা মতে গত ১৪ মার্চ সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় তার নিজবাড়ী বারপাড়াস্থ শাসনেরবাগ এলাকায় আসে। ওই সময় ওই গামেন্টস কর্মী ও আদম বেপারী সাথে কথা বিনিময় হওয়ার সময় হঠাৎ এক অজ্ঞাত নামা ব্যাক্তি আদম বেপারী বাড়িতে এসে হাজির হয়। বিদেশ নেওয়ার বিষয়ে কথা বলার সময় অজ্ঞাত নামা ব্যাক্তি ওই গামেন্টর্স কর্মী কুপ্রস্তাব দেয়। কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় অজ্ঞাত নামা ব্যাক্তি ও আদম বেপারী হাজী রহিম বাদশা ওই গামেন্টর্স কর্মীকে ধর্ষণ করে তার সাথে থাকা ৩০ হাজার টাকার মধ্যে ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে ঘর থেকে বের করে দেয়। পরে তিনি বাড়া বাড়িতে ফিরে যান। এ ঘটনায় বুধবার সকালে গিয়ে মামলা করেন।