বন্দরে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, থানায় মামলা

নারায়ণগঞ্জে শবে বরাতের রাতে নানার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ১৫ বছরের কিশোরী গার্মেন্টকর্মী সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার রাতে বন্দর উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের চিড়াইপাড়াস্থ আলমগীরের বসত ঘরে কিশোরীকে সংবদ্ধভাবে ধর্ষণ করা হয়।

এ ঘটনায় শনিবার ভূক্তভোগী কিশোরীর মা বাদী হয়ে আলমগীরকে প্রধান করে তার সহযোগী রফিকের বিরুদ্ধ বন্দর থানায় মামলা করেছেন।

শনিবার রাত সড়ে ১০টায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা। তিনি জানান, কিশোরী গার্মন্টকর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। আমরা ভিকটিমকে উদ্ধার করে মেডিকেল পরিক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছি। একই সাথে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত দোষীদের পুলিশি অভিযান জোরদার করা হয়েছে।

মামলা বলা হয়, বন্দর উপজেলার চিড়াইপাড়া এলাকার ১৫ বছরের এক কিশোরী একটি স্থানীয় গার্মেন্টসে কাজকরে আসছে। গত শুক্রবার রাত ৯টায় শবে বরাত উপলক্ষে ওই গার্মেন্টকর্মী তার নানা বাড়িতে বেড়াতে আসে। মোবাইলে সিম সেটিং এর জন্য পার্শ্ববর্তী শুক্কুর আলী বাড়ীতে গেলে তার ছেলে আলমগীর ও একই এলাকার মৃত শাহাজদ্দিন মিয়ার ছেলে রকি কিশোরী মুখ চেপে ঘরে নিয়ে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে।