‘তাদেরকে চিহ্নিত করবো’-খোকন

অ্যাড. খোকন সাহা বলেছেন, ‘৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে। সরকার গঠনের পর বঙ্গবন্ধু হত্যা, জেল হত্যার বিচার সম্পন্ন করেছেন শেখ হাসিনা। জোট সরকারের আমলে আমরা আন্দোলন, সংগ্রাম করেছি। অনেক নির্যাতন ভোগ করেছি। ২০০৮ সালে আবার নেত্রী ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশে রূপান্তরিত করেছেন। আজকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে বাংলাদেশের নাম। রাস্তাঘাট, যোগাযোগ ব্যবস্থা, শিক্ষা, নারী উন্নয়ন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু দেশ স্বাধীন করেছেন আর দৃশ্যমান উন্নয়ন করছেন শেখ হাসিনা। সকল দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখতে পাচ্ছেন সবকিছুই করেছেন শেখ হাসিনা।’

গতকাল বিকেলে শহরে মহানগর যুবলীগের মিছিল শেষে দুই নম্বর রেলগেইটে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

খোকন সাহা আরও বলেন, ‘আগামীতে দলের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদের সামনের কাতারে আনতে হবে। ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ না করে, মুক্তিযুদ্ধের লেবাস নিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরে লুটের রাজত্ব কায়েম করেছে তাদেরকে চিহ্নিত করতে হবে। তাদেরকে আমরা চিহ্নিত করবো। কাদের আঙুল ফুলে বটগাছ হয়েছে, বটগাছ থেকে জোড়া বটগাছে রূপান্তরিত হয়েছে; সেগুলো আমাদের উপলব্ধি করতে হবে।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, ফতুল্লা থানা যুবলীগ নেতা আজমত আলী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ প্রমুখ।